আজ যেন দিবস উদযাপন একটি দলের বাপের পৈত্রিক সম্পত্তি হিসেবে পরিণত হয়েছে : শিবির সভাপতি

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে ৯ শিবির কর্মী আটক

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলায় শিবিরের নয় কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) সকালে দেবীগঞ্জ উপজেলার চৌরাস্তা মোড় থেকে তাদের আটক করা হয়।

দুপুরে দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল হাসান সরকার জানান, নাশকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে শিবিবের চার-পাঁচজন সদস্য বিভিন্ন এলাকা থেকে এসে চৌরাস্তা মোড়ে জড়ো হন। খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

পরে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বাকিদের বিভিন্ন স্থান থেকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় মামলা দিয়ে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

ছাত্র শিবিরের জেলা সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সেক্রেটারি মোঃ লোকমান আলী।
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর উপজেলা আমীর আবুল বাশার বসুনীয়াসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ নেতাকর্মীদেরকে গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ।

দুপুরে এক যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবিরের জেলা সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও সেক্রেটারি লোকমান আলী বলেন, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল হাসানের এই বক্তব্য মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন।

জেলা সভাপতি বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে বিজয় দিবসের র্যালী করছিলাম সেখানে পুলিশ এসে বাঁধা দেয় এবং লাঠিচার্জ করে আর সেখান থেকেই নয়জন ভাইকে গ্রেফতার করেছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা কচুরিপানার মত বানের পানিতে ভেসে আসিনি। আমরা বাংলাদেশে ভাড়াটিয়া নই। বিজয় দিবস উদযাপন সবার অধিকার আছে। আজ যেন দিবস উদযাপন একটি দলের বাপের পৈত্রিক সম্পত্তি হিসেবে পরিণত হয়েছে।

আটক ব্যক্তিরা হলেন-পঞ্চগড় সদর উপজেলার আশরাফ আলীর ছেলে আমির আলী, টুনিরহাট এলাকার সোলায়মান আলীর ছেলে ওমর ফারুক, সুরিভিটা এলাকার আবুল কালামের ছেলে শাকিল হোসেন, বোদা উপজেলার শাহাপাড়ার আমিনার রহমানের ছেলে আল আমিন,

গিদালপাড়ার মৃত রবিউল ইসলামের ছেলে গোলাম রাব্বানী, আটোয়ারী উপজেলার বলরামপুর চুচুলিয়া এলাকার নুর ইসলামের ছেলে আল মামুন, দেবীগঞ্জ মুন্সীপাড়ার মিল্লাত আলীর ছেলে আব্দুল জলিল, দরুয়াভাঙ্গা এলাকার মৃত কাউছার আলীর ছেলে বাপ্পী হাসান ও বোদা পূর্ব শিকারপুর গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে জোবায়ের হোসেন।