দাড়ি হচ্ছে মুসলিম জাতি স’ত্তার অন্যতম পরিচায়ক ও নিদর্শন: আজহারী

মিজানুর রহমান আজহারী একজন বাংলাদেশি ইসলামি পণ্ডিত, শিক্ষাবিদ, আন্তর্জাতিক ইসলামি বক্তা ও সমাজ সংস্কারক। ঢাকা জেলার ডেমরায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বাংলাদেশের মানুষকে ইসলামের প্রতি দাওয়াত দেন।

আজ সোমবার (১৫ মার্চ) সন্ধ্যায় নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক থেকে মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারীর পোস্ট হুবুহু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলোঃ-

দাড়ি পুরুষের শোভা, পৌ’রুষ’ত্ব ও ব্যক্তি’ত্বের পূর্ণতার প্রতীক। মুসলিম জাতি স’ত্তার অন্যতম পরিচায়ক ও নিদর্শন। তাই, এ পৃথিবীর সকল নবী-রাসুল দাড়ি রেখেছেন।

রাসুলুল্লাহ (ﷺ‬) দাড়ি রাখতে মুসলিম পুরুষদের আদেশ দিয়েছেন। আল্লাহ তা’আলা মানুষের সৃষ্টিগত এই শোভা ও সৌন্দর্যকে পরিবর্তন কিংবা বিকৃত সাধন করতেও নি’ষেধ করেছেন।

কোন প্রতিষ্ঠান তার ইমপ্লোয়ি নিয়োগ দেয়ার ক্ষেত্রে, কাকে নিয়োগ দিবে আর কাকে দিবে না— সে ব্যাপারে পূর্ণ অধিকার তারা রাখে। কিন্তু ইসলামি সংস্কৃতি ও ধর্মীয় মূ’ল্যবোধে আঘা’ত দেয়ার এখতেয়ার রাখেনা।

ইসলামি লাইফস্টাইলে অ’ভ্যস্ত বিয়ার্ডেড যুবকদের আপনার প্রতিষ্ঠানে রি’ক্রুট করবেন না, আর ইসলামের ধর্মীয় উৎসবে ঈদ উপলক্ষে পাঞ্জাবি, পায়জামা এবং কটি বিক্রি করে শত শত কোটি টাকার বিজনেস করবেন! ব্যাপারটা কেমন দ্বি-মূখী হয়ে গেলো না?

আলহামদুলিল্লাহ। ইসলামি জীবনাচার ও মূল্যবোধ রক্ষার অনুভূতি আজো এদেশে টিকে আছে। ব্যবসা করতে চান, ব্যবসা করুন। দেশীয় ব্র্যান্ড হিসেবে আড়ং এর সুনাম দীর্ঘ দিনের।

এটা ধরে রাখার চেষ্টা করুন। পলিসি রিভাইজ করুন। দেশীয় আস্থাশীল কোন ব্র্যান্ডের এরকম পলিসি সাধারণ মানুষজনও ভালোভাবে নিচ্ছে না। তাই, কারো আ’ত্মপরিচয় ও মূল্যবোধের জায়গায় হাত না দিয়ে, আরো উদারনীতি অবলম্বনের বিনীত আহবান রাখতে চাই।

এদিকে তাঁর ফেসবুকে পোস্টকৃত ছবিতে লেখা আছে, দাড়ি একমাত্র দৃশ্যমান সুন্নাহ যা আপনি সাথে করে কবরে নিয়ে যাবেন।