আজানের শব্দে ঘুমের স’মস্যা হয় তাই আজান ব’ন্ধের দাবিতে জেলা প্রশাসককে চিঠি!

মাইকে আজান বন্ধের দাবি জানিয়েছেন ভারতের এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর সঙ্গীতা শ্রীবাস্তব।

এ ব্যাপারে উত্তর প্রদেশের প্রয়াগরাজ জেলা প্রশাসককে চিঠি দিয়েছেন এ ভিসি। তার দাবি, ভোরের আজানে ঘুমের ব্যা’ঘাত ঘটে। তাই সারাদিন ক্লান্ত অনুভব করেন এবং কাজে মন বসাতে স’মস্যা হয়।

সঙ্গীতা শ্রীবাস্তব তার চিঠিতে উল্লেখ করেন, তার বাড়ির সামনে একটি মসজিদ রয়েছে। ভোর সাড়ে ৫টায় প্রতিদিন সেখানে লাউড স্পিকারে আজান দেওয়া হয়।

তাতেই খুব ভে’ঙে যায় তার। আজানের শব্দে ঘুম ভে’ঙে যাওয়ার পর সারাদিন ক্লান্তি অনুভব করেন তিনি।

ভাইস চ্যান্সেলর সঙ্গীতা শ্রীবাস্তব মাইকে আজান বন্ধের ব্যাপারে দেশটির হাইকোর্টের হ’স্তক্ষে’পও দাবি করেছেন তার চিঠিতে।

এর আগে লকডাউনের সময় আজান বন্ধের দাবিতে এলাহাবাদ হাইকোর্টে মা’মলা হয়েছিল।

আদালত কখনোই মানুষের মৌলিক অধিকারে নাক গলাবে না, তাই কোনোভাবেই আজান ব’ন্ধের নির্দেশ দেওয়া সম্ভব নয় বলে তখন জানিয়েছিলেন আদালত।