‘হাদিসে আছে কেয়ামতের আগে একটি রোগ সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়বে’

করোনা ভাইরাস এখন বিশ্ব ম’হামা’রী। দিন দিন বাড়ছে এ ভাইরাসে আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা। একইসঙ্গে মানুষের ভেতরও ছড়াচ্ছে আত’ঙ্ক। বি’চ্ছিন্ন হচ্ছে এক দেশ থেকে আরেক দেশ।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে চার হাজার ৬০০ জন মা’রা গেছে। আর বিশ্বের ১১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছ’ড়িয়েছে এই ভাইরাস। আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় সোয়া লাখে। এমন অবস্থায় বিভিন্ন ধর্মের মানুষরা এর ব্যাখ্যা দিতে শুরু করেছেন। কেউ কেউ বলছেন, পৃথিবীর ধ্বং’স অ’নিবা’র্য হয়ে উঠেছে।

ইসলাম ধর্মের অনেক অনুসারী ব্যাখ্যা তুলে ধরে বলেছেন। তারা হাদিসে বর্ণিত একটি অসুখের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, পৃথিবী শেষ হওয়ার আগে একটি রোগ সারাবিশ্বে ছ’ড়িয়ে পড়বে।

আবার অনেকে বলছেন, কেয়ামতের আগে কাবায় ‘তাওয়াফ’ বন্ধ হবে। এই ঘটনার সঙ্গে চলমান করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে কাবায় ওমরাহ বন্ধের তুলনা করেছেন তারা। আবার অনেকে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের বারবার হাত ধোয়ার পরামর্শকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার আগে ওযু করার সঙ্গে মিলিয়েছেন।

গাম্বিয়ায় পুরো রমজান মাস জুড়ে নাচ-গান নিষিদ্ধ ঘোষণা

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিবা আসন্ন রমজানে (৬ জুন থেকে শুরু) যেকোনো ধরনের প্রকাশ্য নাচ, গান ও নাটক নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। দেশটির পুলিশ বলছে, কেউ এই নির্দেশনা অমান্য করলে তার জেল হতে পারে। কেউ এই আইন অমান্য করলে কর্তৃপক্ষকে অবগত করার জন্যও আহ্বান জানিয়েছে তারা।

গাম্বিয়া পুলিশের মুখপাত্র লামিন নাইজি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এএফপিকে বলেছে, ‘পুলিশ কর্তৃক রমজান মাসে নাচ, গান ও নাটক নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তকে জনগণ স্বাগত জানিয়েছে এবং আইন অমান্য করার অপরাধে (গত বছর) একজনকেও গ্রেপ্তার করা হয়নি।’
গত সপ্তাহে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে পুলিশ সতর্ক করে বলে, যেকোনো ধরনের উৎসব, আয়োজন ও অনুষ্ঠানে দিনে বা রাতে নাটক, গান ও নাচ নিষিদ্ধ। সবাইকে এই আইন মান্য করার আহ্বান করা হচ্ছে। নতুবা আইন প্রয়োগে কোনো প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না এবং অভিযুক্তরা গ্রেপ্তার হবে।

উল্লেখ্য, গত ডিসেম্বরে গাম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইয়াহইয়া জামিহ দেশটিকে ইসলামী রাষ্ট্রে উন্নীত করার ঘোষণা দেন। তবে তিনি জোর দিয়ে বলেন, দেশের সংখ্যালঘু খ্রিস্টান সম্প্রদায় পূর্ণ নাগরিক অধিকার ও স্বাধীনতা ভোগ করবে এবং নারীদের ওপর বিশেষ পোশাক রীতি চাপিয়ে দেওয়া হবে না। গাম্বিয়ার ৯০ শতাংশ নাগরিক মুসলিম।

গাম্বিয়ায় পুরো রমজান মাস জুড়ে নাচ-গান নিষিদ্ধ ঘোষণা

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিবা আসন্ন রমজানে (৬ জুন থেকে শুরু) যেকোনো ধরনের প্রকাশ্য নাচ, গান ও নাটক নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। দেশটির পুলিশ বলছে, কেউ এই নির্দেশনা অমান্য করলে তার জেল হতে পারে। কেউ এই আইন অমান্য করলে কর্তৃপক্ষকে অবগত করার জন্যও আহ্বান জানিয়েছে তারা।

গাম্বিয়া পুলিশের মুখপাত্র লামিন নাইজি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এএফপিকে বলেছে, ‘পুলিশ কর্তৃক রমজান মাসে নাচ, গান ও নাটক নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তকে জনগণ স্বাগত জানিয়েছে এবং আইন অমান্য করার অপরাধে (গত বছর) একজনকেও গ্রেপ্তার করা হয়নি।’
গত সপ্তাহে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে পুলিশ সতর্ক করে বলে, যেকোনো ধরনের উৎসব, আয়োজন ও অনুষ্ঠানে দিনে বা রাতে নাটক, গান ও নাচ নিষিদ্ধ। সবাইকে এই আইন মান্য করার আহ্বান করা হচ্ছে। নতুবা আইন প্রয়োগে কোনো প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না এবং অভিযুক্তরা গ্রেপ্তার হবে।

উল্লেখ্য, গত ডিসেম্বরে গাম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইয়াহইয়া জামিহ দেশটিকে ইসলামী রাষ্ট্রে উন্নীত করার ঘোষণা দেন। তবে তিনি জোর দিয়ে বলেন, দেশের সংখ্যালঘু খ্রিস্টান সম্প্রদায় পূর্ণ নাগরিক অধিকার ও স্বাধীনতা ভোগ করবে এবং নারীদের ওপর বিশেষ পোশাক রীতি চাপিয়ে দেওয়া হবে না। গাম্বিয়ার ৯০ শতাংশ নাগরিক মুসলিম।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.