করোনায় অসহায়দের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় জাহানারা

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশের অসহায়, সুবিধাবঞ্চিত ও দুস্থ মানুষদের পড়তে হচ্ছে মহাবিপাকে। কারণ গোটা দেশ স্থবির হয়ে পড়ায় তাদের উপার্জনের পথ বলা চলে পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। তাদের দুরবস্থার বিষয়টি উপলব্ধি করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় জাহানারা আলম। এই তারকা পেসার নিজে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার পাশপাশি সামর্থ্য অনুসারে সবাইকে নিজ নিজ জায়গা থেকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের স্বীকৃত পেজে কয়েকটি ছবি পোস্ট করেছেন জাহানারা। সেখানে দেখা গেছে, অসহায় মানুষদের মধ্যে খাবারসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস বিতরণ করছেন তিনি। সেই সঙ্গে ছবিগুলোর ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘এটা কোনো লোক দেখানো পোস্ট নয়। আমার সামর্থ্য অনুযায়ী, যতটুকু সম্ভব হয়েছে, আমি তাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। আপনাদেরকেও অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছি। আপনার সামর্থ্যের মধ্যে একজন, পাঁচজন বা তার অধিক যে যতটুকু পারেন, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। আমরা পারি আমাদের দেশের এই সংকটময় মুহূর্তে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে।’

উল্লেখ্য, গেল ২৫ মার্চ করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেটাররা। কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৭ ক্রিকেটারের সঙ্গে কিছু দিন আগে শেষ হওয়া জিম্বাবুয়ে সিরিজে খেলা আরও ১০ ক্রিকেটারসহ মোট ২৭ জন গঠন করেন তহবিল। খেলোয়াড়দের প্রত্যেকে সেখানে তাদের এক মাসের বেতনের অর্ধেক টাকা অনুদান দিয়েছেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কেন্দ্রীয় চুক্তিভুক্ত ও গেল তিন মাসে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা বিভিন্ন গ্রেডের ক্রিকেটারদের সমন্বয়ে এই তহবিলে জমা হয় ৩০ লাখ টাকারও বেশি। তবে কর কাটার পর ২৬ লাখ টাকার মতো থাকবে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানিয়েছিলেন তামিম ইকবাল-মুশফিকুর রহিমরা।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.