ঘর থেকে বের হতেই গুলি করে হত্যা করলো সেনাবাহিনী

ফিলিপাইনের সবচেয়ে বড় দ্বীপ লুজানে ব্যাপক হারে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পর গত বুধবার এক ঘোষণায় দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে পুলিশ ও সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের নির্দেশ দিয়েছিলেন, লকডাউন অমান্য করে কেউ ঘর থেকে বের হলেই যেন সঙ্গে সঙ্গে গুলি করা হয়।

এবার নাইজেরিয়ায় লকডাউনের মধ্যে বের হওয়ায় এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করেছে দেশটির সেনা সদস্যরা।

স্থানীয় সময় বহস্পতিবার নাইজেরিয়ার দক্ষিণাঞ্চলের রাজ্য ডেলটার ওয়ারি শহরের বাসিন্দা জোসেফ পেসুকে গুলি করে হত্যা করা হয়। গতকাল শুক্রবার দেশটির পুলিশ ও এক আইনপ্রণেতার বরাত দিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর প্রকাশ করেছে।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাকে গোটা নাইজেরিয়ায় চলছে লকডাউন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৮৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ২ জন।

তবে ডেলটার এক আইনপ্রণেতা সিনটের ওভি ওমো-আজিজি এভাবে কোনও নাগরিককে গুলি করে হত্যা ঘটনায় জড়িত সেনা সদস্যের বিচার দাবি করেছেন । এরইমধ্যে ওই সেনাসদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

যে কারনে জাহান্নামে নারীর সংখ্যা বেশী হবে!

হাদীসে বর্ণিত রয়েছে, জাহান্নামের বেশীরভাগ সদস্য হবে নারী। কিন্তু এর পেছনের কারণ সম্পর্কে আমরা অবগত নই। অনেকের মাঝেই এই বিষয় নিয়ে মনে বিদ্বেষ কাজ করে। কিন্তু এর পেছনের সহিহ হাদিস জানতে পারলে আপনার মনের সকল নেতিবাচক চিন্তা দূর হয়ে যাবে।

আসুন জেনে নেয়া যাক সেই তথ্য-
হাদীসে এসেছে-উসামা ইবনে যায়েদ রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

“আমি জান্নাতের গেটে দাড়ালাম, দেখলাম যারা তাতে প্রবেশ করেছে তারা অধিকাংশ ছিল দুনিয়াতে দরিদ্র অসহায়। আর ধনী ও প্রভাবশালীদের আটকে দেয়া হয়েছে। তবে তাদের মধ্যে যাদের জাহান্নামে যাওয়ার ফয়সালা হয়ে গেছে তাদের কথা আলাদা। আর আমি জাহান্নামের প্রবেশ পথে দাড়ালাম। দেখলাম, যারা প্রবেশ করছে তাদের অধিকাংশ নারী।”

(বর্ণনায় বুখারী ও মুসলিম)

কেন নারীরা পুরুষদের তুলনায় অধিকহারে জাহান্নামে যাবে?

আব্দুল্লাহ ইবনে উমার রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন :

“হে নারীগণ! তোমরা দান-সদাক করো। বেশী বেশী করে আল্লাহ তাআলার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করো। কেননা আমি জাহান্নামে তোমাদের অধিকহারে দেখেছি।এ কথা শোনার পর উপস্থিত মহিলাদের মধ্য থেকে একজন -যার নাম ছিল জাযলা- প্রশ্ন করলো, ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমাদের কেন এ অবস্থা? কেন জাহান্নামে আমরা বেশী সংখ্যায় যাবো?

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন: তোমরা স্বামীর প্রতি বেশী অকৃতজ্ঞ ও অভিশাপ দাও বেশী।”

(বর্ণনায় : মুসলিম)

বলতে খারাপ শুনালেও আসলে আমাদের সমাজের নারীদের বাস্তব চিত্র এ রকমই যা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন। আমি দাম্পত্য জীবনে অনেক সুখী নারীকে দেখেছি তারা স্বামীর প্রতি অনেক সময় চরম অকৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে থাকে।

অনেক সময় সামান্য বিরক্ত হলে নিজ সন্তানদেরও অভিশাপ দেয়। নারীদের জাহান্নাম থেকে বাঁচার জন্য এ দুটো স্বভাব পরিহার করতে হবে অবশ্যই। আর রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর বলার উদ্দেশ্য এটাই। তিনি নারীদের স্বভাব সংশোধন করার জন্যই এ কথা বলেছেন। নারীদের খাটো করা বা তাদের ভূমিকা অবমুল্যায়নের জন্য বলেননি।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.