সুমধুর কন্ঠের আজানে বিমুগ্ধ নেট দুনিয়া, প্রশংসায় ভাসছেন আতিফ আসলাম

বিশ্বজুড়ে করোনার মহামারিতে আতঙ্কিত সবাই। এই সময়ে সহায়তার আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানি সঙ্গীতশিল্পী আতিফ আসলাম। নিজে আজান দিয়ে তা রেকর্ড করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করছেন তিনি।

আজানের ভিডিওর সঙ্গে উর্দুভাষায় সাবটাইটেলও দিয়েছেন আতিফ আসলাম।

তার আজানের সুরে বিমুগ্ধ সবাই। দারুণ প্রশংসায় ভাসছেন এই শিল্পী। তার আজানের সুরে চোখে পানি এসে গেছে ভক্তবৃন্দের। উচ্ছসিত প্রশংসা করে একজন বলছেন, তার আজানের ধ্বনি আমার অন্তরে গিয়ে লেগেছে।

আয়েশা নামে একজন লিখেছেন, আতিফ আসলামের কন্ঠে আজানের ধ্বনি শুনে আমার গায়ের লোম দাঁড়িয়ে গেছে।

ড্রিম গার্ল নামের একজন লিখেছেন, আতিফ আসলামের সুমধুর সুরের আজানের ধ্বনি শুনে আমার চোখে পানি এসে গেছে। সত্যিই হৃদয় ছুয়ে যায়।

সায়েদ রাফি লিখেছেন, আমি আতিফ আসলামের সব গান শুনেছি। কিন্তু সবগুলোর মধ্যে তাই আজানই শ্রেষ্ঠ।

করোনাভাইরাসের আক্রমণের এই সময়ে বরাবরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব আতিফ আসলাম। তিনি বিভিন্নভাবে মানুষকে দান করতে উৎসাহিত করছেন। ডন।

নামাজ পড়ছে কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের দুই সন্তান

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ও অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওনের দুই শিশুসন্তানের নামাজ পড়ার ছবি ফেসবুকে ভাই’রাল হয়েছে। ছবি দুটি নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে পোস্ট করেছিলেন নিশাদ ও নিনিতের মা মেহের আফরোজ শাওন। রবিবার সন্ধ্যায় শাওনের পোস্ট করা ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখেন– ‘বিরাজ সত্য সুন্দর…’।

শাওনের পোস্ট করা ছবিওতে দেখা যায়, ধানমণ্ডির দখিন হাওয়া ফ্ল্যাটে নিশাদ হুমায়ূন ও নিনিত হুমায়ূনের মাঝখানে শিশুকে নামাজ পড়ছে। হুমায়ূন আহমেদের শিশুসন্তানদের নামাজ পড়ার দৃশ্য দেখে ফেসবুকে সবাই প্রশংসা করেছেন। রাজিয়া রহমান জলি নামের একজন লিখেছেন, ‘ওদের দোয়ায় যেন শান্তি ফিরে আসে জীবনে।’

লুৎফর রহমান নামের একজন লিখেছেন, ‘খুব মনোযোগ দিয়ে মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট নিজেকে সোপর্দ করেছেন বাপজানরা। এটিই হচ্ছে একজন সফল বাবা-মায়ের শ্রেষ্ঠ প্রাপ্তি। আল্লাহ এই নিষ্পাপ বাচ্চাদের দিকে তাকিয়ে আমাদের ক্ষমা করো। ফারহাত নামের একজন লিখেছেন, ‘আপু বাচ্চাগুলোকে রাসুল (সা.) এর আদর্শে আদর্শিত করবেন। এই দোয়া করি।’

প্রসঙ্গত হুমায়ূন-শাওন দম্পতির প্রথম পুত্রসন্তান নিশাদ হুমায়ূন জন্মগ্রহণ করে ২০০৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি। আর ২০১০ সালের ৬ সেপ্টেম্বর নিনিত হুমায়ূন পৃথিবীর আলো দেখে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.