ডাক্তারি পেশায় ফিরছেন মিস-ইংল্যান্ড, কী হবে সুন্দরী মুকুট যদি মানুষই না বাঁচে!

সুন্দরী প্রতিযোগিতার মুকুট খুলে এবার করোনা রোগীদের চিকিৎসায় স্টেথোস্কোপ নিয়ে সরাসরি যুদ্ধে নামছেন ২০১৯ সালের মিস ইংল্যান্ড ভাষা মুখোপাধ্যায়। তার আরেক পরিচয় তিনি একজন চিকিৎসক। কলকাতায় ব্রিটিশ হাইকমিশনের সঙ্গে এতদিন সামাজিক কাজে যুক্ত ছিলেন ভাষা।

মার্চের শুরুতে নিজের জন্মস্থান ভারতে দাতব্য প্রতিষ্ঠান কভেন্ট্রি মার্সিয়া লায়ন্স ক্লাবের আমন্ত্রণে চার সপ্তাহের জন্য এসেছিলেন মিস ইংল্যান্ড।

এখানে স্কুলশিক্ষার্থীদের সচেতন করে তুলতে ও প্রতিবন্ধীদের সাহায্যে কাজ করছিলেন তিনি। নটিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চিকিৎসা বিজ্ঞানে স্নাতক এ বঙ্গতনয়া।

ইংল্যান্ডে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা বৃদ্ধি দেখে তিনি আর স্থির থাকতে পারেননি। করোনার মোকাবেলায় ফিরে যাচ্ছেন তার পুরনো কাজের জায়গায়।

ভাষা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এই সময় তার ইংল্যান্ডের পাশে থাকাই সবচেয়ে জরুরি। একজন ডাক্তার হিসেবে তার এখন পিলগ্রিম হাসপাতালে কাজ করা উচিত।

ভাষা আরও বলেন, আমি আমার সহকর্মীদের কাছে ওই অঞ্চলের খবর নিয়মিত শুনছি। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমি কাজে যোগ দিতে চাই।

গত বুধবার ইংল্যান্ডে ফিরেছেন তিনি। ফিরে সরাসরি কাজে যোগ দিতে পারেননি। নিয়ম মেনে তাকেও সপ্তাহ দুয়েক গৃহবন্দি থাকতে হচ্ছে।

তার পর তিনি কাজে যোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন ভাষা। উল্লেখ্য, বোস্টনের এই হাসপাতালেই জুনিয়র চিকিৎসক পদে চাকরি করতেন চিকিৎসা বিষয়ে দুটি পৃথক ডিগ্রিধারী ভাষা।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই বাঙালি তরুণী ভাষা মুখোপাধ্যায় ২০১৯ সালের মিস ইংল্যান্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য চিকিৎসা পেশা ছেড়েছিলেন।

সে বছর প্রতিযোগিতায় সেরা নির্বাচিত হওয়ার পর মডেলিংয়ে যোগ দেন তিনি। তবে এবার করোনাভাইরাসের মোকাবেলায় পুরনো পেশায় ফিরে যাচ্ছেন তিনি।

সূত্র: সিএনএন

নামাজ পড়ছে কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের দুই সন্তান

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ও অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওনের দুই শিশুসন্তানের নামাজ পড়ার ছবি ফেসবুকে ভাই’রাল হয়েছে। ছবি দুটি নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে পোস্ট করেছিলেন নিশাদ ও নিনিতের মা মেহের আফরোজ শাওন। রবিবার সন্ধ্যায় শাওনের পোস্ট করা ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখেন– ‘বিরাজ সত্য সুন্দর…’।

শাওনের পোস্ট করা ছবিওতে দেখা যায়, ধানমণ্ডির দখিন হাওয়া ফ্ল্যাটে নিশাদ হুমায়ূন ও নিনিত হুমায়ূনের মাঝখানে শিশুকে নামাজ পড়ছে। হুমায়ূন আহমেদের শিশুসন্তানদের নামাজ পড়ার দৃশ্য দেখে ফেসবুকে সবাই প্রশংসা করেছেন। রাজিয়া রহমান জলি নামের একজন লিখেছেন, ‘ওদের দোয়ায় যেন শান্তি ফিরে আসে জীবনে।’

লুৎফর রহমান নামের একজন লিখেছেন, ‘খুব মনোযোগ দিয়ে মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট নিজেকে সোপর্দ করেছেন বাপজানরা। এটিই হচ্ছে একজন সফল বাবা-মায়ের শ্রেষ্ঠ প্রাপ্তি। আল্লাহ এই নিষ্পাপ বাচ্চাদের দিকে তাকিয়ে আমাদের ক্ষমা করো। ফারহাত নামের একজন লিখেছেন, ‘আপু বাচ্চাগুলোকে রাসুল (সা.) এর আদর্শে আদর্শিত করবেন। এই দোয়া করি।’

প্রসঙ্গত হুমায়ূন-শাওন দম্পতির প্রথম পুত্রসন্তান নিশাদ হুমায়ূন জন্মগ্রহণ করে ২০০৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি। আর ২০১০ সালের ৬ সেপ্টেম্বর নিনিত হুমায়ূন পৃথিবীর আলো দেখে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.