করোনার রাজধানী উহান শহর থেকে লকডাউন তুলে নিচ্ছে চীন

বর্তমান বিশ্বে আত’ঙ্ক ছড়াচ্ছে যে করোনাভাইরাস তা প্রথম ছড়িয়েছিল চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসায় দীর্ঘদিন পর সেখান থেকে লকডাউন তুলে নিচ্ছে চীন সরকার।

করোনাভাইরাসের মূল উৎপত্তিস্থল ছিল এ উহান। ৭৬ দিন পর সেখান থেকে লকডাউন তুলে নেওয়া হলেও কিছু বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে উহানের বাসিন্দাদের। কর্তৃপক্ষ সতর্ক করেছেন, উহান থেকে ফের সং’ক্রমণ ছড়াতে পারে।

গত বছরের ডিসেম্বরে উহানে করোনায় আ’ক্রা’ন্ত রোগী পাওয়া যায়। এরপর ২৩ জানুয়ারি সারা বিশ্ব থেকে উহানকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে চীন।
করোনায় আজ বুধবার পর্যন্ত আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৬৯১ এবং মা’রা গেছে ৮২ হাজার ৭৪ জন। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই ছড়িয়েছে এ ভাইরাস। তথ্য সূত্রঃ এমটিনিউজ

আমি কালো জিরা ও মধু খেয়ে করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়েছি

নাইজেরিয়ার ওয়ো রাজ্যের গভর্নর সেয়ি মাকিন্দে করোনায় আক্রা’ন্ত হয়েছিলেন। গত সপ্তাহেই ধ’রা পড়ে তিনি করোনায় আক্রা’ন্ত ছিলেন। কিন্তু এখন তিনি করোনা মুক্ত। করোনার হাত থেকে বেঁচে ফিরেছেন। পরে সোমবার তিনি জানিয়েছেন, কি করে করোনার সঙ্গে যু’দ্ধ করেছেন। কি ধরনের খাবার তিনি খেয়েছেন।

করোনায় আক্রা’ন্ত হওয়ার পর থেকেই তিনি আইসোলেশন ছিলেন। করোনার সঙ্গে যু’দ্ধ করেছেন। অবশেষে তিনি জয় পেয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, শুধু কালোজিরা আর মধু খেয়েই তিনি করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। করোনার হাত থেকে বাঁচতে শরীরের ইমিউনিটিকে শক্তিশালী করার কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, ইমিউনিটিকে শক্তিশালী করার উপাদান আমাদের হাতের কাছেই রয়েছে।

গভর্নর সেয়ি মাকিন্দে বলেন, ওয়ো রাজ্যের স্বাস্থ্যসেবা বোর্ডের নির্বাহী সচিব ড. মাইদেন ওলাতুনজি আমার হাতে কালোজিরা তুলে দেন। তার সঙ্গে মধু মিশিয়ে দেন তিনি। আমি সেটা খেয়েছি। আর এই প্রাকৃতিক উপাদানগুলোই ইমিউনিটিকে শক্তিশালী করে আর করোনা ভাইরাস নি’র্মূল করে।

তিনি বলেন, মাইদেন ওলাতুনজি কালোজিরা আর মধুর মিশ্রণটি সকালে একবার ও সন্ধ্যায় একবার খেতে বলেন। আমি সেই উপদেশ মেনে চলেছি। আমি এখন ঠিক আছি। সুস্থ অনুভব করছি। আমি এখন করোনা মুক্ত। আমি বলতে চাই, করোনার এই সময়ে আত’ঙ্কিত হলে চলবে না। চিকিৎসকের উপদেশ মেনে চললে অতি দ্রুত সুস্থ হওয়া যায়।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.