চিকিৎসকদের কাছে সারাজীবন ঋণী থাকবো: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

করোনাভাইরাসের আক্রমণ থেকে দ্রুত সেরে উঠছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। অবস্থার উন্নতি হওয়ায় ইন্টেন্সিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ) থেকে তাকে আগেই সরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে রিকভারি ইউনিটে। জানা গিয়েছে, এখন অল্প অল্প হাঁটাচলাও করতে পারছেন তিনি।

এমন অবস্থায় ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের (এনএইচএস) কর্মরত সবার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।
গেল বৃহস্পতিবার আইসিইউতে যাবার পর প্রথমবারের মতো বিবৃতি দিলেন তিনি।

বরিস জনসন বলেন, ‘আমার কাছে চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানানোর ভাষা নেই। তাদের কাছে সারাজীবন ঋণী থাকবো।’

করোনা নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে প্রতিদিনের বিফ্রিং দেয়ার সময় স্বরাষ্ট্র সচিব প্রীতি প্যাটেল এসব তথ্য জানান।

দুই সপ্তাহ আগে বরিস জনসনের করোনা পজেটিভ হবার বিষয়টি সামনে আসে। তারপর ডাউনিং স্ট্রিটের বাসভবনে সেলফ আইসোলেশনে চলে যান তিনি। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে লন্ডনের সেন্ট থমাস হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

প্রীতি প্যাটেল বলেন, ‘অবস্থার উন্নতি হলেও ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে আছেন তিনি। আপাতত সুস্থ হতে আরও সময় ও বিশ্রামের প্রয়োজন।’

দেশটির গণমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, সিনেমা দেখে এবং সুডোকু সমাধান করে সময় কাটাচ্ছেন বরিস জনসন। হাসপাতালে লর্ড অব দ্য রিংস ট্রিলজি ও ব্রিটিশ কমেডি উইথনেল অ্যান্ড আই দেখে ফেলেছেন তিনি।

যুক্তরাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৯ হাজারের কাছাকাছি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মারা গেছে ৯ হাজার ৮৭৫ জন।

নামাজ পড়ছে কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের দুই সন্তান

নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ও অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওনের দুই শিশুসন্তানের নামাজ পড়ার ছবি ফেসবুকে ভাই’রাল হয়েছে। ছবি দুটি নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে পোস্ট করেছিলেন নিশাদ ও নিনিতের মা মেহের আফরোজ শাওন। রবিবার সন্ধ্যায় শাওনের পোস্ট করা ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখেন– ‘বিরাজ সত্য সুন্দর…’।

শাওনের পোস্ট করা ছবিওতে দেখা যায়, ধানমণ্ডির দখিন হাওয়া ফ্ল্যাটে নিশাদ হুমায়ূন ও নিনিত হুমায়ূনের মাঝখানে শিশুকে নামাজ পড়ছে। হুমায়ূন আহমেদের শিশুসন্তানদের নামাজ পড়ার দৃশ্য দেখে ফেসবুকে সবাই প্রশংসা করেছেন। রাজিয়া রহমান জলি নামের একজন লিখেছেন, ‘ওদের দোয়ায় যেন শান্তি ফিরে আসে জীবনে।’

লুৎফর রহমান নামের একজন লিখেছেন, ‘খুব মনোযোগ দিয়ে মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট নিজেকে সোপর্দ করেছেন বাপজানরা। এটিই হচ্ছে একজন সফল বাবা-মায়ের শ্রেষ্ঠ প্রাপ্তি। আল্লাহ এই নিষ্পাপ বাচ্চাদের দিকে তাকিয়ে আমাদের ক্ষমা করো। ফারহাত নামের একজন লিখেছেন, ‘আপু বাচ্চাগুলোকে রাসুল (সা.) এর আদর্শে আদর্শিত করবেন। এই দোয়া করি।’

প্রসঙ্গত হুমায়ূন-শাওন দম্পতির প্রথম পুত্রসন্তান নিশাদ হুমায়ূন জন্মগ্রহণ করে ২০০৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি। আর ২০১০ সালের ৬ সেপ্টেম্বর নিনিত হুমায়ূন পৃথিবীর আলো দেখে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.