আমেরিকার গালে দেয়া এই থাপ্পড় ইতিহাসে স্থান করে নেবে: ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী

0

ইরানের প্রতির’ক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির হাতামি বলেছেন, তার দেশ যেকোনো ধরনের হু’মকি মোকা’বেলার ক্ষেত্রে উন্নত অ’স্ত্র ব্যবহার করতে দৃ’ঢ়প্রতি’জ্ঞ। তিনি আজ (বৃহস্পতিবার) এক অনুষ্ঠানে একথা বলেছেন।জেনারেল হাতামি বলেন, আগ্রা’সীদের বিরু’দ্ধে সময়মতো জবা’ব দেয়ার জন্য যে ধরনের ক্ষ’মতা ও ইচ্ছাশ’ক্তি থাকা প্রয়োজন, ইরানের তা সবই আছে। তিনি বলেন, যে কোনো ধরনের হু’মকি মোকা’বেলার জন্য ইরান সেই পর্যায়ের উন্নত অ’স্ত্র ব্যবহার করবে।

জেনারেল হাতামি বলেন, অভ্য’ন্তরীণ চাহিদার কথা মাথায় রেখেই ইরান সাম’রিক সর’ঞ্জামাদির নকশা প্রণয়ন করেছে এবং সেভাবে এসব অ’স্ত্র ও সর’ঞ্জামাদি উৎপাদন করা হয়েছে।

ইরাকে অবস্থিত আমেরিকার দুটি সাম’রিক ঘাঁ’টিতে ইরানের ইসলামি বিপ্ল’বী গা’র্ড বাহি’নী বা আইআরজিসি সম্প্রতি যে ক্ষে’পণা’স্ত্র হা’মলা চা’লিয়েছে সে সম্পর্কে প্রতির’ক্ষামন্ত্রী আমির হাতামি বলেন, এটি ছিল ইরানের পক্ষ থেকে আমেরিকার মু’খে দেয়া কঠো’র থা’প্পড়।

তিনি বলেন, এটি ছিল যেমন সময়মতো, তেমনি উন্নত এবং নিখুঁ’ত ক্ষে’পণা’স্ত্র একেবারে সুনি’র্দিষ্ট ল’ক্ষ্যবস্তুতে আঘা’ত হে’নেছে। ইরানের পক্ষ থেকে আমেরিকার গা’লে দেয়া এই থা’প্পড় ইতিহাসে স্থান করে নেবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

জাকাত দিলে কোনো মুসলিম দেশে দরিদ্র থাকত না : এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান বলেন, ‘জাকাত দিলে কোনো মুসলিম দেশে দরিদ্র থাকত না।’তিনি আরো বলেন, ‘দরিদ্রতমদের চেয়ে ধনী দেশগুলো ২০০ গুণ বেশি সমৃদ্ধ; কিন্তু মুসলিমরা যদি ধর্মীয় রীতি অনুসারে গরিবদের তাদের জাকাত দিত, তাহলে কোনো মুসলিম দেশ দরি’দ্রতায় ভুগত না।’

রবিবার ইস্তান্বুলে অনুষ্ঠিত ওআইসির উচ্চ পর্যায়ের পাবলিক ও ব্যক্তিগত বিনিয়োগ সংক্রা’ন্ত এক বৈঠকে তাইয়্যিপ এরদোগান এসব কথা বলেন।

লাখ লাখ দারি’দ্র পী’ড়িত মুসলমানদের সাহায্যের জন্য মুসলিম দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়ে এরদোগান বলেন, ‘ওআইসিভুক্ত দেশগুলোতে ২১ শতাংশ জনসংখ্যা রয়েছে; এর অর্থ ৩৫০ মিলিয়ন ভাইবোন রয়েছেন যারা তাদের জীবন দারি’দ্রসীমার ধ’রে রাখার চেষ্টা করছেন। ‘

এ সময় তিনি জানান, ‘বিশ্বে সবচেয়ে বেশি পর্যটক ভ্রমণের দিক থেকে তুরস্কের অবস্থান ৬ নম্বরে রয়েছে। চার কোটি ৬০ লাখ পর্যটক ভ্রমণ করেছেন; ২০১৯ সালে মধ্যে ৫ কোটিতে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য রয়েছে। ‘

ওআইসি সদস্যভুক্ত দেশগুলোকে গত মাসে আলবেনিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্পে ক্ষ’তিগ্র’স্থতের সাহায্যের অনুরোধ জানিয়ে এরদোগান বলেন, ‘আমি আপনাকে অনুরোধ করছি সবকিছু একত্রিত করে আলবেনিয়ার ভাইদের সাহায্য করুন। ‘

গত ২৬ নভেম্বর আলবেনিয়ায় ৬ দশমিক চার মাত্রার ভূমিকম্প হয়। এতে ৫১ জন মা’রা যান এবং ৯ শতাধিক মানুষ আহ’ত হয়েছেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.