রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সাইকেল চুরি করে বিক্রি করে দিল ছাত্রলীগকর্মী

0

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) মাদার বখশ্ হল থেকে চুরি হয়ে গেল একটি সাইকেল। আর সেই চুরির ঘটনায় ছাত্রলীগকর্মী বিজয় কৃষ্ণ বণিক জড়িত বলে প্রমাণ পেয়েছেন হল প্রশাসন।

ছাত্রলীগকর্মী বিজয় কৃষ্ণ বণিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্স অ্যান্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি হলের অনাবাসিক শিক্ষার্থী হয়েও ২১৭ নম্বর কক্ষে থাকছেন।

গত শনিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখশ হলের প্রথম ব্লকের ১০২ নম্বর কক্ষের সামনে থেকে শিক্ষার্থী তরিকুল রহমান তারেকের সাইকেল চুরি হয়।

ওই দিনই সাইকেল চুরি যাওয়ার ঘটনাটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন তারেক। সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার রাতে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে চোরকে শনাক্ত করে হল প্রশাসন।

হল প্রশাসন জানিয়েছে, শিমুল আহমেদ নামে বিশ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন মেহেরচণ্ডী এলাকায় এক বাসিন্দা সাইকেলটি চুরি করেছেন। তিনি বহিরাগত। এর পরই অভিযুক্ত চোরকে মতিহার থানা পুলিশের কাছে তুলে দেয় হল প্রশাসন।

ফুটেজে দেখা যায়, শনিবার দুপুর ১২টা ৫৭ মিনিটে বিজয় ও ‘চোর’ শিমুল হলের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করেন। এর পর তারা দুজনে একসঙ্গে হেঁটে ওয়াশরুমে যান। মাত্র ১ মিনিট পর একসঙ্গেই ওয়াশরুম থেকে ফিরে আসে দুজন। ১০২ নং কক্ষের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় চোরকে সেই কক্ষের সামনে রাখা সাইকেলটি দেখিয়ে দেয় বিজয়।

আবার দুপুর ১টা ১ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে সেই চোরের সঙ্গে দেখা যায় ছাত্রলীগকর্মী বিজয়কে। ফুটেজে দেখা যায়, তারা দুজনে হলে প্রবেশ করে। এ সময় বিজয় হলের গেস্টরুমে প্রবেশ করার পর পর শিমুল সাইকেলে চড়ে বসেন এবং এটি চালিয়ে দ্রুত হল থেকে বেরিয়ে যান।

এদিকে আটক শিমুলকে জিজ্ঞাসাবাদে চুরির সঙ্গে বিজয়ের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে স্বীকার করেন তিনি।

এ বিষয়ে হলের আবাসিক শিক্ষক কাজী জাহিদুর রহমান বলেন, বহিরাগত শিমুল আহমেদকে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্স অ্যান্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগকর্মী বিজয় কৃষ্ণ বণিক সাইকেলটি চুরি করেছে। চুরির পর সাইকেলটিকে এক হাজার ৬০০ টাকায় বিক্রয় করেছে বলে স্বীকার করেছেন তারা।

বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অবহিত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

মহানবী (সাঃ) আমাদের সর্বশ্রেষ্ঠ নেতা: এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়িব এরদোগান বলেছেন, মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মুসলিম উম্মাহর জন্য আদর্শ ও অনুসরণের ক্ষেত্রে সর্বশ্রেষ্ঠ নেতা। বুধবার রাজধানী আঙ্কারায় অনুষ্ঠিত একটি সভায় কীর্তিমান ঐতিহাসিক নেতাদের সম্পর্কে এক যুবকের করা প্রশ্নের উত্তরে তিনি এই মন্তব্য করেন।

এরদোগান বলেন, আমাদের পূর্ব পুরুষদের মধ্যে এমন অনেক মহান নেতা আছেন, যারা তার সময়ের কীর্তিমান পুরুষ হিসেবে গোটা বিশ্বেই প্রভাব সৃষ্টি করেছেন এবং আজও তারা ইতিহাসের উদাহরণ। তুর্কি প্রজাতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা ও আধুনিক তুরস্কের রূপকার মুস্তফা কামাল আতাতুর্কও এমনি একজন মহান নেতা।

কাতারের আমির শায়েখ তামিম বিন হামদ আস সানিকেও বর্তমান সময়ের অন্যতম গ্রহণযোগ্য নেতার স্বীকৃতি দিয়েছেন এরদোগান। এরদোগান বলেন, শায়েখ তামিম প্রগতিশীল একজন যুবক নেতা, তার সবচে’ বড় গুণ হল, তিনি সবসময় দরিদ্র দেশসমূহের পাশে দাঁড়ান।

তবে ইউরোপের বিস্তৃত ভূখণ্ডে আদর্শিক কোন নেতাই নেই বলে মন্তব্য করেন এরদোগান। ‘আমি ইউরোপ জুড়ে বর্তমানে বাস্তবিক কোন নেতা দেখিনা।’ যোগ করেন এরদোগান।
প্রাক্তন জার্মান চ্যান্সেলর জেরহার্ড শ্রয়েডারকে একজন সফল নেতা আখ্যা দিয়ে এরদোগান বলেন, নেতৃত্বের গুণ খুব ভালভাবেই রপ্ত করতে পেরেছিলেন তিনি, আর সত্যবাদিতায় সে ওপরের সারির মহান এক নেতা ছিলেন।