পিইসি পরিক্ষা বাতিল, যেভাবে ষষ্ঠ শ্রেণিতে উঠবে শিক্ষার্থীরা

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে এ বছরের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা বাতিল করেছে সরকার। স্ব-স্ব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মূল্যায়নের ভিত্তিতে পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হবে শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। তিনি বলেন, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে এবার প্রাথমিক সমাপনী ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা না নেয়ার প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন। এবার স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষা নেব।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আকরাম আল হোসেন জানান, স্কুল খোলা সম্ভব হলে নিজ নিজ স্কুল ও মাদ্রাসা পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করাতে পারবে। এ ক্ষেত্রে প্রশ্নপত্র স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান করবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ওই মূল্যায়ন পরীক্ষা নিতে হবে।

এদিকে এইচএসসি, জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা এবং স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

প্রসঙ্গত দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়তে থাকায় গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে, যা ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। ফলে এ বছরের পাবলিক পরীক্ষা হবে কিনা তা নিয়ে সংশয়ের সৃষ্টি হয়।

পরীক্ষা না হওয়ায় এ বছর মেধাবৃত্তি দেয়া হবে না।

বিদ্যালয় খুললে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তা কীভাবে চলবে, সে বিষয়েও একগুচ্ছ পরিকল্পনা তৈরি করছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সেখানে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মুখে মাস্ক পরা, হাত পরিষ্কার, থার্মোমিটার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হবে। সবাইকে সেসব মেনে চলতে হবে। শিক্ষার্থীদের সুরক্ষায় স্বাস্থ্য নিরাপত্তামূলক এমন ৫০টির বেশি নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছে। এসব বিষয়ে প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছিল ১৮ আগস্ট। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সেই প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.