বাংলাদেশের জয়ে ঈদের আনন্দ উপভোগ করলো পাকিস্তান

0

আইসিসির এবারের আসরের অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ের মাধ্যমে ইতিহাস গড়ে এই প্রথম আইসিসির কোন বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জয় করলো বাংলাদেশ।আর তাতেই সবদিক থেকে প্রশংসার জোয়ারে ভাসছে জুনিয়র টাইগাররা।

টাইগারদের প্রতি অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারত ও পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা। বাংলাদেশের এই জয়ে পাকিস্তানে যেন ঈদের আনন্দ বইতেছে। ক্রিকেট পাকিস্তান নামক এক পেইজে তেমনই ছবি পোস্ট করেছে। ফেসবুকে তারা লিখেছে যখন প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে আসে তখন ফেব্রুয়ারি ভারতের জন্য এক মাস ভাগ্যবান নয় ।ঈদ মোবারক ।

এদিকে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ দলের বিশ্বকাপ জয়ে বিজয়োল্লাসে মেতেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। জয় নিশ্চিতের পর শিক্ষার্থীদের ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ স্লোগানে মুখরিত হয়ে পুরো টিএসসি প্রাঙ্গণ। আজ রবিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে বাংলাদেশ দলের জয় নিশ্চিতের পর পরই এমন বিজয়োৎসব শুরু হয়।

এর আগে বেলা দুইটা থেকেই বড় পর্দায় ফাইনাল ম্যাচ উপভোগ করতে হাজারো শিক্ষার্থী টিএসসির পায়রা চত্বরে জড়ো হন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) উদ্যোগে টিএসসি প্রাঙ্গণে বড় পর্দায় খেলা দেখার আয়োজন করেন ডাকসুর ক্রীড়া সম্পাদক শাকিল আহমেদ তানভীর।

আরো পড়ুন- বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে সুস্বাগত : ইমরান খান

দীর্ঘদিন পর পাকিস্তানে ফিরেছে টেস্ট ক্রিকেট। আর বাংলাদেশের পাকিস্তান সফরে স্বাগত জানিয়েছে পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটাররা এবং সেই সাথে উচ্ছ্বসিত বিশ্বকাপজয়ী পাক অধিনায়ক এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পাকিস্তানে বাংলাদেশ ও টেস্ট ক্রিকেটকে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়া টুইটারে ইমরান লিখেছেন- এ দেশে টাইগার দলকে সুস্বাগত। একই সঙ্গে ক্রিকেটের লংগার ভার্সনকেও। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে রাওয়ালপিন্ডিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে লড়ছে বাংলাদেশ। পরবর্তী টেস্ট হবে আগামী এপ্রিলে, করাচিতে।

আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। রাওয়ালপিন্ডিতে দুই টেস্ট ম্যাচের সিরিজের ১ম ম্যাচে মাঠে নেমেছে মুমিনুল হকের নেতৃত্বাধীন দল। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ২৩৩ রানের জবাবে বাবরের শতকে দ্বিতীয় দিন শেষে ৩৪২ রান তুলে পাকিস্তান।

যেখানে তাদের লিড গিয়ে দাঁড়ায় ১০৯ রান। আজ রবিবার সিরিজের ৩য় দিনে মাঠে নেমেছে পাকিস্তান। তবে আজ সকালে মাঠে নেমে দাঁড়াতেই পারেনি বাবর আজম। ১৪৩ রানে রাহীর বলে ক্যাচ আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন বাবর আজম। এরপর ৬৫ করা আসাদ শফিককে আউট করেন এবাদত।

শেষপর্যন্ত ১২২.৫ ওভারে সবউইকেট হারিয়ে ৪৪৫ রান করে পাকিস্তান। বাংলাদেশের সামনে লিড ২১২ রানের। রাহী ও রুবেল ৩ টি করে উইকেট নিয়েছে। এরপর ২১২ রানের লিডে ব্যাটিংয়ে নেমে ভালো শুরু করলেও বেশি সময় উইকেটে টিকে থাকতে পারেনি সাইফ হাসান। ১৬ রান নিয়ে মাঠ ছাড়েন সাইফ।

এরপর ইয়াসির শাহার বলে ৩৪ রানে লেগ বিফোরের ফাঁদে পরে সাজঘরে ফেরেন তামিম। এরপর দলের হয়ে খেলতে থাকা শান্তকে ৩৮ রানে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে ফেরান নাসিম শাহ। এবং ঠিক পরের বলেই তাইজুক ইসলামকে (০) রানে ফেরান নাসিম। তাইজুল ফিরতে না ফিরতেই উইকেটে আসা মাহমুদুল্লাহকে শুন্য রানে ফেরান নাসিম শাহ।

এরপর রানের খাতা কোলার আগেই মোহাম্মদ মিথুনকে শূন্য রানে ফেরান ইয়াসির শাহ। তৃতীয় দিন শেষে পাকিস্তানের হয়ে ৪ টি উইকেট পেয়েছেন নাসিম শাহ। এবং ইয়াসির শাহ ২ টি উইকেট পেয়েছেন। ৪৫ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২৬ রান। এখনও ৮৬ রান লাগবে, হাতে মাত্র ৪ উইকেট। তৃতীয় দিন শেষে ইনিংস পরাজয়ের মুখে বাংলাদেশ। মুমিনুল হক (৩৭) এবং লিটন দাস (০) অপরাজিত আছেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.