স্বাধীন ফিলিস্তিন ব্যতিত ইসরাইলের সঙ্গে শান্তিচুক্তি সম্ভব নয়: সৌদি আরব

ইহুদিদের সন্ত্রাসবাদী অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার জন্য স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র চায় সৌদি আরব।

শুক্রবার ইতালিতে মেড২০২০ নামে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিয়ে সৌদি যুবরাজ ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ এমনটি জানিয়েছেন।

ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ বলেন, ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিককরণে আমাদের একটি শান্তি চুক্তি দরকার, যেটি মর্যাদাসম্পন্ন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র এবং এমন কার্যক্ষম সার্বভৌমত্বের অধিকার প্রদান করবে যা ফিলিস্তিনিরা মেনে নিতে পারেন।

ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিককরণের চুক্তি হতে পারে এমন খবর উড়িয়ে দিয়েছেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন , ১৯৬৭ সালের সীমানা অনুযায়ী স্বাধীন ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র গঠিত হলেই কেবল ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার কথা বিবেচনা করবে সৌদি আরব।

আরও সংবাদ

১৯ বছর যুদ্ধের পর তালেবানের সঙ্গে আফগান সরকারের লিখিত চুক্তি

আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যে শান্তি প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে একটি লিখিত চুক্তি হয়েছে।

আলোচনা অব্যাহত রাখতে দুপক্ষই এটি মেনে চলার ঘোষণা দিয়েছে। এ চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছে পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্র।

ভবিষ্যতে আলোচনা এগিয়ে নেয়া, যুদ্ধবিরতি নিয়ে কীভাবে আলোচনা হবে, প্রাথমিক চুক্তিতে তারই রূপরেখা তৈরি হয়েছে বলে বুধবার যৌথ বিবৃতিতে আফগান সরকার ও তালেবান জানিয়েছে।

গত ১৯ বছরের যুদ্ধের মধ্যে এটিই দুপক্ষের মধ্যে প্রথম কোনো লিখিত চুক্তি। খবর আলজাজিরা ও ডয়েচে ভেলের।

যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, একটি যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরি করা হবে। তারা শান্তিচুক্তির এজেন্ডা কী হবে তার খসড়া তৈরি করবে।

আফগান সরকারের প্রতিনিধি নাদের নাদেরি রয়টার্সকে বলেন, আলোচনার পদ্ধতি ও প্রস্তাবনা চূড়ান্ত হয়েছে। এবার নির্দিষ্ট কর্মসূচি অনুযায়ী আলোচনা চলবে। তালেবান প্রতিনিধিও টুইট করে এ বক্তব্য সমর্থন করেছেন।

আফগান সরকার ও তালেবানের এ চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তান।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও দুপক্ষকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, এই চুক্তি হলো মতৈক্যে পৌঁছনোর জন্য দুপক্ষের নিরন্তর চেষ্টা ও ইচ্ছের যোগফল। দুপক্ষ যাতে সহিংসতা কমিয়ে যুদ্ধবিরতিতে পৌঁছতে পারে, তার জন্য যুক্তরাষ্ট্র চেষ্টা করবে।

পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই চুক্তি প্রমাণ করে দিচ্ছে– দুপক্ষই আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মিটিয়ে নিতে চাইছে।